সোমবার, ০৬ জুলাই ২০২০ | ২২ আষাঢ় ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
লাইফস্ট্যাইল

কম বাজেটে ভ্রমণ

অনলাইন ডেস্ক
২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০

আপনি কি নিয়মিত ভ্রমণ করতে চান? হুটহাট ভ্রমণ করতে ইচ্ছে হয়? মন চাইলেই উড়াল দিতে চান স্বপ্নের জায়গায়? টাকার টেনশন ছাড়াই ঘুরতে চান? তাহলে আপনাকে একটু হিসাব করে চলতে হবে। গুছিয়ে চলতে হবে। কিছু বিষয়ে সামান‌্য সচেতন হলেই ভ্রমণ হতে পারে আপনার জীবনের সবচেয়ে সুখময় মুহূর্ত।

১. পরিবহন খরচ থেকেই শুরু করুন। পরিবহন খরচ কমাতে একটু গবেষণা করতে হবে আপনাকে। যদি একটু বেশি দূরে যেতে চান, তাহলে বিমানভাড়ার দিকে লক্ষ্য রাখুন। যদি কাছেপিঠে কোথাও যেতে চান বাস, ট্রেনের খোঁজ রাখুন। বিভিন্ন ট্রাভেল এজেন্সির, টুরিস্ট গ্রুপগুলোর সঙ্গে যোগাযোগ রাখুন। এলার্ট চালু রাখুন। বিমান টিকেট অন্তত ভ্রমণের ৯০ দিন আগে কিনে রাখুন। ট্রাভেল এজেন্সিগুলো কখন কোথায় ছাড় দিচ্ছে লক্ষ‌্য রাখুন।  টুরিস্ট গ্রুপগুলোর সঙ্গে ভ্রমণে গেলে খরচ কম হয়।

২. গন্তব্যে পৌঁছাতে প্রয়োজনে গণপরিবহন ব্যবহার করুন। এতে অত্যন্ত কম খরচে পৌঁছে যেতে পারবেন। ট্যাক্সির কথাও ভাবতে হবে। তবে বুঝতে হবে, সেখানে কী ধরনের ট্যাক্সি চলে। সিট কতজনের। একেক জায়গায়, একেকরকম পদ্ধতি। একেকরকম গাড়ি। গুগলে এ বিষয়ে বিস্তারিত জেনে নিতে পারেন। অনলাইনেই খরচ সম্পর্কে ধারণা পাবেন। যেমন চার সিটের কার হলে, গ্রুপ করে ভ্রমণ করা শ্রেয়।  খরচ কমে আসে অনেক।

৩. থাকার জায়গাটা নিয়ে বেশ বিপদেই পড়েন অনেকে। বুঝে ওঠেন না- হোটেল নাকি হোম স্টে? গেস্ট হাউজ না হোস্টেল? জিজ্ঞেস করে জেনে নিন, খরচ কোনটির কম। আবার অনেকেই ভাড়া বুঝতে পারেন না। কোথাও ওঠার আগে অনলাইনে রিভিউগুলো পড়ে নিন। ভাড়া দেখে নিন। কয় রাত থাকবেন, ভাড়ার সাথে হিসাব করে নিন। তাহলে বাজেট পরিকল্পনা করতে সুবিধে হবে।  প্রয়োজনে আসা-যাওয়া রাতে করুন। তাহলে দুদিনের হোটেল খরচ বেঁচে যাবে।

৪. ভ্রমণে খাবার খরচ বড় একটি বিষফোঁড়া। অনেকেই বেহিসেবি খাবার কেনেন। খেতেও পারেন না। অনেকে ভ্রমণের চেয়ে খাবারেই বেশি মনোযোগী হন। ফলে খরচ বেড়ে যায় কয়েকগুণ। ভ্রমণও ঠিকমতো হয় না। আপনি যদি খরচ কমাতে চান, তাহলে এমন রিসোর্ট বা হোটেল খুঁজুন যেখানে ভাড়ার সঙ্গে খাবার অন্তর্ভুক্ত।আগে থেকেই বিষয়গুলো জেনে নেবেন। সেক্ষেত্রে খরচ অনেক কমে আসবে।  গ্রুপ করে ঘুরলে খাবার খরচও কম হয়।

৫. আপনি কি ভ্রমণে ট্যুর গাইড নিতে চান? যেখানে যাচ্ছেন সেখানে প্রবেশ ফি লাগে? আপনি কি স্কুবা ডাইভিং বা হট এয়ার বেলুন রাইড নিতে চান? হিসাব করে নিন- কোনটা করবেন, কোনটা বাদ দিবেন। সব করলে খরচে কুলোবে কিনা ভেবে নিন। ভ্রমণে গিয়ে আলাদা শপিং করতে চান কিনা হিসাব করুন বাসায় বসে।  নইলে ফেরত আসতে গিয়ে বিপদে পড়ে যাবেন। সবচেয়ে ভালো হয় অফ সিজনে দর্শনীয় স্থানগুলোতে ভ্রমণ করলে।

অনেকের কাছে ভ্রমণ জাগতিক সম্পদের চেয়েও বেশি। গাড়ি-বাড়ি বা শেষ জীবনের সঞ্চয় গড়ে তোলার চেয়ে ভ্রমণকেই বড় মনে করেন অনেকে। কেউ কেউ ভ্রমণের জন্য প্রতিমাসে আলাদা বাজেট সরিয়ে রাখেন- এটা দারুণ! পরিকল্পনা করলে ভ্রমণে গিয়েই মিলবে জীবনের সবচেয়ে সুন্দর সময়।  

যদি আপনার কাছে ছুটি কাটানো বড় রকমের আনন্দদায়ক হয়, তাহলে অবসর জীবনের জন‌্যও কিছু কিছু জমিয়ে রাখতে পারেন। কারণ তখন আপনার জীবনে মিলবে অফুরন্ত সময়। তখন ভ্রমণ আপনাকে আরেক রকম আনন্দ দেবে। আপনাকে এক ধরনে মানসিক শান্তি দেবে। বুক ভরে শ্বাস নেয়ার জন্য একটুখানি প্রশান্তিও এনে দেবে।  তাতেই বাড়বে আয়ু।

পুঁজিবাজারে ওয়ালটনের প্রান্তসীমা মূল্য নির্ধারণের নিলাম শুরু ২ মার্চ
বান্দরবানে পর্যটকদের জন্য ‘ট্যুরিস্ট বাস’ চালু

আপনার মতামত লিখুন