রোববার, ২৯ নভেম্বর ২০২০ | ১৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
লাইফস্ট্যাইল

ঘুরতে গিয়ে যেসব নিয়ম-কানুন মানতে হবে

অনলাইন ডেস্ক
০৭ জুলাই ২০২০

করোনাভাইরাসের কারণে ১০০ দিনেরও বেশি সময় ধরে বন্ধ ছিল ভারতের বিভিন্ন দর্শনীয় স্থান। তবে কেন্দ্রীয় সরকারের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, গত ৬ জুলাই থেকে সেসব স্থানে দর্শনার্থীদের প্রবেশাধিকার মিলছে। যদিও সংক্রমণের ভয় এখনও আছে। তাই কিছু বিধিনিষেধ বা নিয়ম-কানুন মেনেই এসব জায়গায় ঘুরতে যাওয়া যাবে। এমনটিই জানিয়েছে দেশটির কেন্দ্রীয় পর্যটন ও সংস্কৃতি মন্ত্রণালয়।

ভারতের কেন্দ্রীয় পর্যটন ও সংস্কৃতিমন্ত্রী প্রহ্লাদ সিং প্যাটেল ঘোষণা করেন, ৬ জুলাই থেকে ঐতিহ্যবাহী বা দর্শনীয় স্থান খুলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। তবে সব কিন্তু এ মুহূর্তেই খুলছে না। কোন জায়গা, কীভাবে দর্শকদের জন্য উন্মুক্ত করা হবে, কেন্দ্র থেকে তার গাইডলাইনও দেওয়া হয়েছে।

গাইডলাইনে বলা হয়েছে, কনটেনমেন্ট জোনের কোনো দর্শনীয় স্থান খোলা হবে না। স্বরাষ্ট্র ও স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের নির্দেশ মেনে চললেও সংশ্লিষ্ট জেলা প্রশাসনের সঙ্গে আলোচনা করে, তাদের অনুমতি নিয়েই কেবল খুলতে হবে ঐতিহ্যবাহী স্থান। এ ছাড়াও কিছু নিয়ম-কানুন মানতে হবে–

১. শুধু অনলাইনে টিকিট দিতে হবে। কাউন্টার খুলে হাতে হাতে কাগজের টিকিট দেওয়া যাবে না।

২. পার্কিং বা কাফেটেরিয়ায় অনলাইন পেমেন্ট করতে হবে, নোট ব্যবহার করা যাবে না।

৩. সৌধ এবং তার মধ্যকার সংগ্রহশালা প্রতিদিন নিয়মিত স্যানিটাইজ করতে হবে।

৪. কর্মীদের কঠোরভাবে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে।

৫. প্রবেশদ্বারে দর্শনার্থীদের জন্য রাখতে হবে হ্যান্ড স্যানিটাইজার।

৬. কারো মুখে মাস্ক না থাকলে তাকে প্রবেশ করতে দেওয়া যাবে না।

৭. দর্শনার্থীদের থার্মাল স্ক্যানিং বাধ্যতামূলক করতে হবে।

সূত্র জানায়, স্মৃতিসৌধগুলোর দায়িত্বে থাকা কর্তৃপক্ষের পাশাপাশি দর্শনার্থীদের জন্যও বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়েছে। যেমন–

• নিরাপদ শারীরিক দূরত্ব বজায় রেখে প্রবেশ করবেন দর্শনার্থীরা।

• দর্শনার্থীদের মুখে মাস্ক বাধ্যতামূলক থাকতে হবে।

• দর্শনীয় স্থানে কোনো গ্রুপ ফটোগ্রাফি চলবে না।

• ভেতরে কোনো খাবার ও পানি নিয়ে প্রবেশ করা যাবে না।

কক্সবাজারকে বিশ্বমানের পর্যটন নগরী করতে কাজ করছে সরকার: গণপূর্ত প্রতিমন্ত্রী
বিমানের নি‌ষেধাজ্ঞা উঠ‌লো তুরস্ক, শ্রীলঙ্কা ও মালয়েশিয়া রুটে!

আপনার মতামত লিখুন