মঙ্গলবার, ২২ জুন ২০২১ | ৮ আষাঢ় ১৪২৮ বঙ্গাব্দ
অর্থনীতি

মার্সেল মোবাইলের সেলস সাফল্য উদযাপন, ২২ কর্মকর্তা পুরস্কৃত

নিজস্ব প্রতিবেদক
০২ জুন ২০২১

দেশের মোবাইলফোন বাজারের নতুন ব্র্যান্ড মার্সেল। খুব অল্প সময়ের মধ্যেই বাজারে ব্যাপক সাড়া ফেলেছে বাংলাদেশি এই ব্র্যান্ড। মাত্র দুই মাসের যাত্রায় উল্লেখযোগ্য পরিমাণ মোবাইল ফোন বিক্রি হয়েছে মার্সেলের। এ উপলক্ষে মোবাইল ফোনের সেলস সাফল্য উদযাপন করেছে প্রতিষ্ঠানটি। সংশ্লিষ্ট ২২ কর্মকর্তাকে পুরস্কৃত করেছে কর্তৃপক্ষ।

এ উপলক্ষে রোববার (৩০ মে ২০২১) রাজধানীর বসুন্ধরায় মার্সেল করপোরেট অফিসে এক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। প্রধান অতিথি হিসেবে অনলাইনে যুক্ত ছিলেন প্রতিষ্ঠানটির পরিচালক এস এম মঞ্জুরুল আলম। সে সময় ফুল দিয়ে কর্মকর্তাদের অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা জানানো হয়। সাফল্য উদযাপনে কাটা হয় কেক।

অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন মার্সেল মোবাইলের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা এস এম রেজওয়ান আলম, এক্সিকিউটিভ ডিরেক্টর আদনান আফজাল, ডেপুটি এক্সিকিউটিভ ডিরেক্টর কাজী জাহিদ হাসান, মার্সেল মোবাইলের হেড অব সেলস মোহাম্মদ ওয়াহিদুজ্জামান, ডেপুটি অপারেটিভ ডিরেক্টর আরিফুল হক রায়হান ও মাহবুব-উল-হাসান মিলটন, ফার্স্ট সিনিয়র ডেপুটি অপারেটিভ ডিরেক্টর জাওয়াদ আহমেদ, মার্কেটিং ইনচার্জ হাবিবুর রহমান তুহিন প্রমুখ।

উল্লেখ্য, চলতি বছরের ৮ এপ্রিল দেশের বাজারে যাত্রা শুরু করে মার্সেল মোবাইল। অল্প সময়ের মধ্যেই বাংলাদেশে তৈরি সাশ্রয়ী মূল্যের মোবাইল ফোন দিয়ে ক্রেতাদের মন জয় করে নিয়েছে বাংলাদেশি এই ব্র্যান্ড।

মার্সেল মোবাইলের সেলস সাফল্যে কর্মকর্তাদের অভিনন্দন জানান এস এম মঞ্জুরুল আলম। তিনি বলেন, বাজারে এসেই খুব অল্প সময়ের মধ্যে বাজিমাত করেছে মার্সেল মোবাইল। করোনার মধ্যেও ব্যাপক পরিমাণে বিক্রি হচ্ছে মার্সেলের মোবাইল ফোন। বর্তমানে ফিচার ফোন বাজারে ছাড়লেও খুব শিগগিরই মার্সেল ব্র্যান্ডের স্মার্টফোন আসছে। প্রোডাক্ট লাইনে যুক্ত হচ্ছে নতুন নতুন ফিচার ও মডেল।

মার্সেল মোবাইলের পুরস্কারপ্রাপ্ত কর্মকর্তারা হলেন মোহাম্মদ ওয়াহিদুজ্জামান, মোহাম্মদ মনিরুজ্জামান, শাহিন আক্তার, লিটন চৌধুরী, নজরুল ইসলাম, সাইফুল ইসলাম খান, মেজবাউল ইসলাম, ইকবাল হোসেন, সেলিম আহমেদ, ইবরাহিম হোসেন, মনিরুল ইসলাম, মামুনুর রশিদ, কাওসার আলম, মেহেদি হাসান, অঙ্কুর দাশ, দেলওয়ার হোসেন, আল আমিন, ফরহাদ হোসেন, তারিক কামাল চয়ন, সরকার সাজ্জাদ রশিদ, জসিম উদ্দীন হাওলাদার এবং রাহাত হোসেন।

জানা গেছে, প্রাথমিকভাবে তিন মডেলের ফিচার ফোন বাজারে ছেড়েছে মার্সেল। ‘মেইড ইন বাংলাদেশ’ ট্যাগযুক্ত ওই ফোনগুলো তৈরি হয়েছে গাজীপুরের চন্দ্রায় নিজস্ব কারখানায়। সাশ্রয়ী মূল্যের ফোনগুলোর মডেল এক্সিনো এ০১, এ২৫ এবং বি৫০। ভিন্ন ভিন্ন দাম ও কনফিগারেশনে সাজানো ফোনগুলোতে রয়েছে ১৬ গিগাবাইট মাইক্রো এসডি কার্ড সাপোর্ট, ডিজিটাল ক্যামেরা, রেকর্ডিং সুবিধাসহ এফএম রেডিও, ফুল মাল্টিমিডিয়া, ইন্টারনেট, ফেসবুক, বø্যাক লিস্ট, হোয়াইট লিস্ট, বাংলা কি প্যাড, টর্চ লাইট নোটিফিকেশনসহ নানা সুবিধা। দেশের সব মার্সেল শোরুম থেকে ক্রেতারা ওই ফোনগুলো কিনতে পারছেন।

কর্তৃপক্ষ জানায়, আন্তর্জাতিক সংস্থা ‘ইন্টারন্যাশনাল অর্গানাইজেশন ফর স্ট্যান্ডারডাইজেশন’ (আইএসও) স্ট্যান্ডার্ড অনুযায়ী মোবাইল ফোন উৎপাদন করছে মার্সেল। ক্রেতাদের রুচি, পছন্দ ও চাহিদা অনুযায়ী সর্বাধুনিক প্রযুক্তির মোবাইল ফোন উৎপাদনে মার্সেলের আছে নিজস্ব গবেষণা ও উন্নয়ণ (আরএন্ডডি) বিভাগ। রয়েছে টেস্টিং ল্যাব এবং মান নিয়ন্ত্রণ বিভাগ। যেখানে উৎপাদিত হ্যান্ডসেটের উচ্চ গুণগতমান কঠোরভাবে নিশ্চিত করা হচ্ছে। ফলে আন্তর্জাতিক মান বজায় রেখে প্রতিযোগিতামূলক দামে মোবাইল ফোন বাজারে ছাড়তে সক্ষম হচ্ছে মার্সেল। 

বাংলাদেশে তৈরি মার্সেলের সব ফোনেই থাকছে ৩০ দিনের রিপ্লেসমেন্ট গ্যারান্টিসহ ১ বছরের বিক্রয়োত্তর সেবা। সারা দেশে ৭৬টি সার্ভিস পয়েন্টের পাশাপাশি মোবাইলফোনের বিক্রয়োত্তর সেবা দিতে রয়েছে আলাদা সার্ভিস স্টেশন।

‘পণ্য উৎপাদনে এক্সট্রিম লেভেলের কোয়ালিটি নিশ্চিত করছে ওয়ালটন’
৯ মাসে ইলেকট্রনিক্স পণ্য রপ্তানি বেড়েছে সাড়ে ৮ গুণ, আয়ের ৬৭.২১ শতাংশ ওয়ালটনের

আপনার মতামত লিখুন