শুক্রবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২২ | ১৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
অর্থনীতি

সাভারে ওয়ালটনের মিট দ্য ফাইটারস প্রোগ্রামে ১৬ কর্মকর্তা পুরস্কৃত

অনলাইন ডেস্ক
১৫ সেপ্টেম্বর ২০২২
ওয়ালটনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সঙ্গে পুরস্কারপ্রাপ্তদের একজন

ওয়ালটনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সঙ্গে পুরস্কারপ্রাপ্তদের একজন

বাংলাদেশের শীর্ষ ব্র্যান্ড ওয়ালটনের উদ্যোগে সাভারে ‘মিট দ্য ফাইটারস অ‌্যান্ড আইটি ট্রেইনিং প্রোগ্রাম-২০২২’ অনুষ্ঠিত হয়েছে। অনুষ্ঠানে ওয়ালটন পণ্যের বিক্রয় বৃদ্ধিতে বিশেষ অবদান রাখায় ১৬ কর্মকর্তাকে পুরস্কৃত করা হয়। পাশাপাশি বিভিন্ন প্লাজা বা সেলস আউটলেটে কর্মরত ওয়ালটন কর্মকর্তাদের আইটি পণ্যের মার্কেটে যোগ্য করে গড়ে তুলতে প্রযুক্তিগত প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়।

সোমবার (১২ ডিসেম্বর, ২০২২) সাভার ক্যান্টনমেন্টের গলফক্লাব হলরুমে দিনব্যাপী ওই প্রোগ্রামের আয়োজন করে ওয়ালটন প্লাজা সেলস অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট (পিএসডি-০২)। পিএসডি-০২ এর আওতায় সাভার, গাজীপুর ওয়েস্ট, মিরপুর এবং টাঙ্গাইল এরিয়ার বিভিন্ন প্লাজা এবং সার্ভিস ম্যানেজমেন্ট সেন্টারের দুই শতাধিক কর্মকর্তা এতে অংশ নেন।

অনুষ্ঠানে ভিডিও কনফারেন্সিংয়ের মাধ্যমে যুক্ত হন ওয়ালটন ডিজি-টেক ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের চেয়ারম্যান এস এম রেজাউল আলম। এছাড়া, অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ওয়ালটন হাই-টেক ইন্ডাস্ট্রিজ পিএলসি.এর ডেপুটি ম্যানেজিং ডিরেক্টর ইভা রিজওয়ানা নিলু, ওয়ালটন প্লাজার প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) মোহাম্মদ রায়হান, ওয়ালটন ডিজি-টেক ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের ডেপুটি ম্যানেজিং ডিরেক্টর লিয়াকত আলী, ওয়ালটন হাই-টেকের এক্সিকিউটিভ ডিরেক্টর মহসিন আলী মোল্লা ও আজিজুল হাকিম, ডিজিটেকের এক্সিকিউটিভ ডিরেক্টর জিনাত হাকিম, হেড অব প্লাজা এইচআর ফয়সাল ওয়াহিদ এবং সিনিয়র অ্যাডিশনাল অপারেটিভ ডিরেক্টর মীর মোহাম্মদ গোলাম ফারুক ও ডেপুটি অপারেটিভ ডিরেক্টর আরিফুল ইসলাম প্রমুখ।

যৌথভাবে অনুষ্ঠান সঞ্চালনায় ছিলেন মোবাইল ফোন মনিটরের মোরশেদ তালকুদার এবং সাভারের রিজিওনাল সেলস ম্যানেজার অতনু রায়। এছাড়া, আইটি বিষয়ে কর্মকর্তাদের প্রশিক্ষণ দেন ওয়ালটন ডিজি-টেকের ট্রেইনিং অ‌্যান্ড ডেভেলপমেন্টের ম্যানেজার তারিকুল ইসলাম হৃদয়।

পুরস্কারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাদের কোম্পানিতে তাদের অবদানের জন্য ধন্যবাদ জানান ডিজি-টেকের চেয়ারম্যান এস এম রেজাউল আলম। ওয়ালটনের পক্ষ থেকে তাদের পেশাগত উন্নয়নে সব ধরনের সহযোগিতার আশ্বাস দেন তিনি। পাশাপাশি কর্মকর্তাদের বিক্রয় কার্যক্রমের ওপরে গুরুত্বপূর্ণ দিক-নির্দেশনা দেন।

তিনি বলেন, ব্যবসায় সফলতা পেতে হলে প্রযুক্তি এবং প্রজন্মের মধ্যে তাল মিলিয়ে আমাদের এগিয়ে যেতে হবে। এক্ষেত্রে গ্রাহকই আমাদের শক্তি। এই শক্তিকে কাজে লাগিয়ে পথ চলতে হবে। এজন্য আইটিসহ নানা বিষয়ে প্রশিক্ষণ গ্রহণ সবার পেশাগত উন্নয়নের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। সর্বত্র চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করেই আমাদের এগিয়ে যেতে হবে। ওয়ালটন প্লাজার প্রতিটি কর্মকর্তা নিজেকে একেকজন সেলস কনসাল্ট্যান্ট হিসেবে দেখবেন। আমরা তাদেরকে বিক্রয়কর্মী হিসেবে দেখছিনা। তারা সবাই সেলস কনসালট্যান্ট।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন ওয়ালটন প্লাজার সিইও মোহাম্মদ রায়হান। তিনি বলেন, ডোমেস্টিক মার্কেটে সবচেয়ে চৌকস সেলস টিম ওয়ালটনের। যার নেতৃত্বে রয়েছে ওয়ালটন প্লাজা। সারা দেশে বর্তমানে প্লাজা রয়েছে ৫৮৭টি। বিশ্বব্র্যান্ড হয়ে ওঠার টার্গেটে ২০২৫ সালের মধ্যে এই প্লাজা ১২শ’তে উন্নীত করা হবে। আর ২০২৫ সালের মধ্যে দেশের ১ নম্বর সেলস নেটওয়ার্ক হবে ওয়ালটন প্লাজা। একই সময়ে দেশের মার্কেটে সব প্রোডাক্টের ক্ষেত্রে নিরঙ্কুশ মার্কেট শেয়ার অর্জন করার টার্গেট হাতে নিয়েছে ওয়ালটন। অর্থাৎ প্রতিটি প্রোডাক্টে মার্কেট শেয়ার থাকবে কমপক্ষে ৫১ শতাংশ।

পুরস্কৃত প্লাজা ম্যানেজাররা হলেন, ধামরাই ওয়ালটন প্লাজার মাহমুদুল হক, সাভার ওয়ালটন প্লাজার শাহীন শিকদার, সারাদাগঞ্জ প্লাজার রাকিব হাসান, বারৈপাড়া প্লাজার মো. শুকুর মাহমুদ, হেমায়েতপুর প্লাজার ফজলুল হক, মিরপুর-১০ প্লাজার তৌফিকুর রহমান, সখিপুর প্লাজার শাহ আলম মিয়া এবং টাঙ্গাইলের আদালত রোড প্লাজার অনুপ কুমার সাহা। এছাড়া, পুরস্কৃত প্লাজা ডেপুটি ম্যানেজাররা হলেন, মানিকগঞ্জ প্লাজার তানজিল হাসান, মিরপুর-১ প্লাজার কামরুল ইসলাম, টাঙ্গাইলের আদালত রোড প্লাজার নূর মোহাম্মদ, চন্দ্রা প্লাজার মামুন হোসেন, সাভার বাসস্ট্যান্ড প্লাজার শফিকুল ইসলাম, কচুক্ষেত প্লাজার সাইদুল ইসলাম, বারৈপাড়া প্লাজা ম্যানেজার শাহিন আলম এবং মির্জাপুর প্লাজার আফানুর।

সাশ্রয়ী মূল্যের অত্যাধুনিক স্মার্টওয়াচ আনলো ওয়ালটন
আট মাসে কাশ্মীরে ২০ লাখের বেশি পর্যটকের সমাগম

আপনার মতামত লিখুন