সোমবার, ০৬ জুলাই ২০২০ | ২২ আষাঢ় ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
জাতীয়

বিমান বহরে আরো দুটি ড্রিম লাইনার যুক্ত করলেন প্রধানমন্ত্রী

স্টাফ রিপোর্টার
২৯ ডিসেম্বর ২০১৯

পতাকাবাহী সংস্থা বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের বহরে বিশ্বের সর্বাধুনিক প্রযুক্তি-সংবলিত সম্পূর্ণ নতুন পঞ্চম ও ষষ্ঠ ড্রিমলাইনার উড়োজাহাজ বোয়িং ৭৮৭ -৯ যুক্ত হয়েছে ।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শনিবার সকালে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরে ফিতা কেটে বিমানের পঞ্চম ও ষষ্ঠ ড্রিমলাইনার ‘সোনার তরী’ এবং ‘অচিন পাখি’র আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন। এ দুটি উড়োজাহাজ যুক্ত হওয়ার মধ্য দিয়ে বিমান বহরে উড়োজাহাজের সংখ্যা দাঁড়াল ১৮টিতে।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এদিন বিমান বন্দরের যাত্রী পরিবহন এবং মালপত্র আনা নেওয়ার সক্ষমতা বৃদ্ধিতে ২১ হাজার ৩ শ’কোটি টাকা ব্যয়ে বহুল প্রতীক্ষিত হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরের ৩য় টার্মিনালের উদ্বোধন করেন।

তিনি বিশ্বের সকল স্থান থেকে বিমানের টিকেট ক্রয়ের সুবিধা-সংবলিত একটি মোবাইল এ্যাপসও অনুষ্ঠানে উদ্বোধন করেন।

এরআগে, ২০০৮ সালে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স মার্কিন উড়োজাহাজ নির্মাতা প্রতিষ্ঠান বোয়িং কোম্পানির সংগে ১০টি নতুন বিমান ক্রয়ের জন্য চুক্তিবদ্ধ হয় । ইতোমধ্যে চারটি নতুন বোয়িং ৭৭৭-৩০০ ইআর, দুটি নতুন বোয়িং ৭৩৭-৮০০ বিমান এবং ৪টি নতুন ড্রিমলাইনার বিমান বহরে যুক্ত হয়।

উল্লেখ্য, গত সেপ্টেম্বর মাসে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের বোয়িং ৭৮৭ ড্রিমলাইনার ‘রাজহংস’ উদ্বোধনকালে বিমানের জন্য আরো ২টি বোয়িং ৭৮৭-৯ ড্রিমলাইনার উড়োজাহাজ কেনার ঘোষণা দেন। তারই ধারাবাহিকতায় প্রথম ৭৮৭-৯ ড্রিমলাইনার ‘সোনার তরী’ উড়োজাহাজ ২১ ডিসেম্বর এবং দ্বিতীয় বোয়িং ৭৮৭-৯ ড্রিমলাইনার ‘অচিন পাখি’ ২৪ ডিসেম্বর ২০১৯ বিমান বহরে যুক্ত হয়।

বিমান বহরের ড্রিমলাইনারের নাম বাছাই করেন শেখ হাসিনা। এগুলো হলো আকাশবীণা, হংসবলাকা, গাঙচিল, রাজহংস, সোনার তরী এবং অচিন পাখি ।

১৬ ঘন্টা টানা উড্ডয়ন ক্ষমতা সম্পন্ন জ্বালানি সাশ্রয়ী বোয়িং ৭৮৭-৯ ড্রিমলাইনারে-এ আসন সংখ্যা থাকছে মোট ২৯৮টি। এর মধ্যে বিজনেস ক্লাস ৩০টি, প্রিমিয়াম ইকোনমি ক্লাস ২১টি এবং ২৪৭টি ইকোনমি ক্লাস।

নিরাপদ ভ্রমণের দোয়া-আমল
বিমানের অ্যাপ উদ্বোধন

আপনার মতামত লিখুন