বুধবার, ২৮ জুলাই ২০২১ | ১৩ শ্রাবণ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ
মতামত

সুবর্ণবাসীর আস্থার প্রতীক

 কাজী নাজরিন
২৯ আগস্ট ২০২০

আমি আজ যাকে নিয়ে লিখতে যাচ্ছি উনাকে নিয়ে লিখার মতো যোগ্যতা আমার নেই জানি, তবুও দুকলম লিখার জন্য চেষ্টা করছি। উনি হলেন সুবর্ণচরের সুসন্তান জনাব খায়রুল আনম চৌধুরী সেলিম সাহেব। তিনি সুবর্ণচরের একাধারে জাতি, ধর্ম, বর্ণ নির্বিশেষে সকলের শ্রদ্ধা ও সম্মানের পাত্র। সকল শ্রেণীর মানুষের ভালোবাসায় উনি সুবর্ণচরে দীর্ঘদিন সামাজিক, রাজনৈতিক, সাংস্কৃতিক ও শিক্ষার উন্নয়নসহ সকল প্রকার উন্নয়নমূলক কাজ করার সুযোগ পেয়েছেন। রাজনৈতিক ক্ষেত্রে তিনি একজন সফল রাজনীতিবিদ।
সুবর্ণচরের প্রতিটি উন্নয়ন উনার হাত ধরেই ধাবিত হচ্ছে। উনি কোন নির্দিষ্ট দল বা মতের জন্যে নয়। উনি দল মত নির্বিশেষে সকলের কল্যাণের জন্য কাজ করে গেছেন আজীবন। সুবর্ণের প্রতিটি মানুষকে উনি ভালবাসেন নিজের পরিবারের মতো। তাইতো আজীবন নিজের পরিবারের থেকে ও বেশি গুরুত্ব এবং সময় দিয়েছেন সুবর্ণের সকলের জন্য। স্বার্থপরতার বিন্দুমাত্র ছায়া ও নেই উনার জীবনে। তিনি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রতিষ্ঠার পাশাপাশি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের অধ্যক্ষের দায়িত্ব ও পালন করেছেন অনেক বছর। আমারও উনার কলেজে পড়ার সুযোগটুকু হয়েছিল। আর এই মহান মূল্যবান মানুষকে খুবই কাছ থেকে দেখার এবং জানার সুযোগ হয়েছিল।
আমি ইন্টারমিডিয়েট ভর্তি হওয়ার পর আমাদের নবীন বরণ অনুষ্ঠানে উনার শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে দেয়া বক্তব্য আমার মনে আজীবন স্মৃতি হয়ে থাকবে। এত সুন্দর আর সাবলীলভাবে কথা বলতে জানেন, এটা একমাত্র তারাই জানতে পারবে যাদের সৌভাগ্য হয়েছে উনার কথা শোনার। একবার আমরা ছয় থেকে সাতজন বান্ধবী কলেজ ছুটির প্রায় দুই ঘন্টা পর প্রাইভেট পড়ে বের হয়ে গাড়ির জন্যে অপেক্ষা করতেছিলাম। উনি বাড়ি যাওয়ার পথে দেখামাত্রই উনার গাড়ি থামিয়ে গাড়ি থেকে বের হলেন। আর আমরা সবাই এত দেরিতে কেন দাঁড়িয়ে আছি খবরাখবর নিলেন। আর উনার সাথে থাকা ড্রাইভারকে বলে আমাদেরকে তিনটা রিকশা ডেকে দিলেন। উনার ওই উদারতা দেখে আমরা সবাই বিমোহিত হয়েছিলাম।
দীর্ঘদিন উনি চেয়ারম্যান পদে বহাল ছিলেন। দল মত নির্বিশেষে সকলের ভোটে প্রতিবারই উনি জয়লাভ করেছেন। সুবর্ণবাসীর একমাত্র আস্থাশীল মানুষ হিসেবে তিনি সুনামও অর্জন করেছেন। বর্তমানে তিনি সুবর্ণচর উপজেলা পরিষদের নির্বাচিত চেয়ারম্যান এবং নোয়াখালী জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি। এতগুলো গুণাবলী সম্পন্ন মানবিক এই মানুষটিকে আমরা যথাযথ মূল্যায়ন না করলে ও মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ঠিকই যথাযথ মূল্যায়ন করেছেন। সম্প্রতি একটা অনুষ্ঠানে অনেক নেতার ভীড়ে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী উনাকে খুঁজে নিয়েছেন। আমাদেরও উচিৎ এই সুযোগ্য সুবর্ণ সন্তানকে যথাযথ মূল্যায়ন করা। সুবর্ণচরের এই সুসন্তানের দীর্ঘায়ু কামনা করছি।

চিরনিদ্রায় জেআইসি স্যুট লিমিটেডের স্বত্বাধিকারী ফখরুল
বিভক্তি নয়, সুদৃঢ় হোক একতা

আপনার মতামত লিখুন