মঙ্গলবার, ১৬ এপ্রিল ২০২৪ | ৩ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
গাঁও গেরাম

সেন্টমার্টিনে পর্যটকবাহী জাহাজ চলাচল বন্ধ ঘোষণা

টেকনাফ প্রতিনিধি
১১ মার্চ ২০২৪

মাহে রমজান এবং পর্যটন মৌসুম শেষের দিকে চলে আসায় সেন্টমার্টিনগামী পর্যটকবাহী জাহাজ চলাচল বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে।

কক্সবাজার-সেন্টমার্টিন নৌরুটে এমভি বার আউলিয়া ও কর্ণফুলি এক্সপেস নামে দুটি জাহাজ চলাচল করতো। যা বন্ধ ঘোষণা করেছে জাহাজ দুটির কর্তৃপক্ষ।

তবে প্রশাসনের পক্ষ থেকে এ ব্যাপারে কোনও নির্দেশনা দেওয়া হয়নি।

সোমবার (১১ মার্চ) থেকে জাহাজ চলাচল বন্ধ থাকবে জানিয়ে কর্ণফুলি ক্রুজলাইনের অ্যাডমিন মো. নুরুল আলম বলেন, ‘ইনানী জেটি সংস্থাপনকাজ এবং এপ্রিল মাসের আবহাওয়া ও কালবৈশাখী ঝড়ের কথা বিবেচনা করে সেন্টমার্টিনে পর্যটকবাহী জাহাজ চলাচল বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘মূলত চলতি মৌসুমে জাহাজ চলাচলের ইতি টানা হয়েছে। আশা করি, আগামী পর্যটন মৌসুম অর্থাৎ সেপ্টেম্বর মাস থেকে পর্যটকবাহী সব জাহাজ কক্সবাজার থেকে সেন্টমার্টিন পুনরায় চলাচল করবে।’

জাহাজ মালিকদের সংগঠন সি ক্রুজ অপারেটরস ওনার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (স্কুয়াব) এবং ট্যুর অপারেটরস অ্যাসোসিয়েশন অব কক্সবাজার (টুয়াক) সভাপতি তোফায়েল আহমেদ বলেন, ‘রমজান এবং পর্যটন মৌসুম শেষের দিকে আসায় কক্সবাজার-সেন্টমার্টিন নৌরুটে জাহাজ চলাচল বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। তবে এর আগে থেকেই টেকনাফ-সেন্টমার্টিন নৌরুটে জাহাজ চলাচল বন্ধ ছিল।’

কক্সবাজার জেলা প্রশাসনের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট (এডিএম) ইয়ামিন হোসেন বলেন, ‘কক্সবাজার জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে কোনও নির্দেশনা দেওয়া হয়নি। জাহাজ মালিকেরা তাদের পর্যটক যাওয়া-আসার ওপর সিদ্ধান্ত নিতে পারে। তবে আমাদের কোনও সিদ্ধান্ত নেই।’

গত ৯ ফেব্রুয়ারি মিয়ানমারের অভ্যন্তরে বাংলাদেশ সীমান্তের কাছাকাছি গ্রামগুলোতে চলমান সংঘাতের কারণে টেকনাফ-সেন্টমার্টিন নৌপথে পর্যটকবাহী জাহাজ চলাচল বন্ধ করেছিল প্রশাসন। ফলে পর্যটকদের চাহিদার কথা বিবেচনা করে কক্সবাজার থেকে দুটি পর্যটক জাহাজ নিয়মিত চলাচল করছিল।

সীমান্ত সড়কের সুফল পাচ্ছেন স্থানীয়রা, খুলছে পর্যটনের দ্বার
সুবর্ণচরে বসতঘর দখল করতে বড় ভাইয়ের উপর হামলা, ভুক্তভোগীর সংবাদ সন্মেলন

আপনার মতামত লিখুন