মঙ্গলবার, ০৫ জুলাই ২০২২ | ২১ আষাঢ় ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
গাঁও গেরাম

বাগেরহাটে আরও ১৬৩ নতুন প্রত্নস্থানের সন্ধান

নিজস্ব প্রতিবেদক
২০ জুন ২০২২

বাগেরহাটে নতুন করে আরও ১৬৩টি প্রত্নস্থান শনাক্ত করেছে প্রত্নতত্ত্ব অধিদফতর। ইউনেস্কো ঘোষিত ঐতিহাসিক মসজিদের শহর বাগেরহাটে সম্প্রতি প্রত্নতাত্ত্বিক জরিপ করে সদর উপজেলার ১০ ইউনিয়ন ও পৌরসভায় এসব প্রত্নতাত্ত্বিক স্থাপনা শনাক্ত করা হয়। আজ রবিবার বাগেরহাট জাদুঘরের কাস্টোডিয়ান মোহাম্মদ যায়েদ বলেন, প্রত্ন সম্পদে সমৃদ্ধ এ জেলায় সরেজমিন জরিপ ও অনুসন্ধানে ১৬৩টি নতুন প্রত্নটিবি, দিঘি, পাথরণ্ড, প্রাচীন কবর ও জমিদার বাড়ির সন্ধান মিলেছে।

ঐতিহাসিক ষাটগম্বুজ মসজিদ কমপ্লেক্সে বাগেরহাট যাদুঘরের সেমিনার কক্ষে আয়োজিত এক সভায় তিনি এতথ্য জানান। তিনি বলেন, নতুন করে শনাক্ত হওয়া স্থানসহ বাগেরহাট সদরে মোট ১৮০টি পত্ন এলাকা শনাক্ত হলো। এর মধ্য থেকে গুরুত্বপূর্ণ স্থান ও নিদর্শনগুলোকে সংরক্ষণের উদ্যোগ নেওয়া হবে। সদর উপজেলার মোট ১৮৪টি গ্রামে এই জরিপ করে প্রত্নতত্ত্ব বিভাগ। এরমধ্যে ৭৩ টি প্রত্ন সাইটের সন্ধান মিলেছে ষাটগম্বুজ ইউনিয়নে। এর পর কাড়াপাড়া ইউনিয়নে ৩৮টি এবং বাগেরহাট পৌর এলাকায় ১৫টি।

বর্তমানে ষাটগম্বুজ মসজিদ, হযরত খান জাহান (রহ.) এর মাজার, খান জাহান নির্মিত প্রাচীন সড়ক, চুনখোলা মসজিদ, সিঙ্গাইর, রণবিজয়পুর (দরিয়া খাঁ), নয় গম্বুজ, দশ গম্বুজ মসজিদসহ ১৭টি সংরক্ষিত পুরাকীর্তি রয়েছে। ১৫শ শতকে খান জাহান(র:) নির্মিত এমন আরও অসংখ্য স্থাপনা ও নিদর্শন ছড়িয়ে ছিটিয়ে আছে এখানে। ১৯৮৩ সালে এসব স্থাপনাকে ইউনেস্কো 'ঐতিহাসিক মসজিদের শহর বাগেরহাট' হিসেবে স্বীকৃতি দিয়ে বিশ্ব ঐতিহ্যবাহী স্থান হিসেবে তালিকাভুক্ত করে। জেলার অন্যান্য উপজেলাতে আরও এমন অনেক গুরুত্বপূর্ণ প্রত্ন নিদর্শন রয়েছে। সেগুলো সন্ধানেও জরিপ করা হবে।

সভায় খানজাহানিয়া গণ বিদ্যালয়ের প্রাক্তন অধ্যক্ষ শেখ সাইফ উদ্দিন, ষাট গম্বুজ ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান শেখ আখতারুজ্জামান বাচ্চু, ষাট গম্বুজ মসজিদের ইমাম হেলাল উদ্দিন, মোয়াজ্জিন টি এম মুজিবুর রহমান, উন্নয়নকর্মী আলমগীর হোসেন মিরুসহ স্থানীয় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক ও গণমাধ্যমকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন। বক্তারা শনাক্ত হওয়া প্রত্নতাত্ত্বিক নিদর্শনগুলো রক্ষণাবেক্ষনের আহব্বান জানান।

প্রসঙ্গত: হারিয়ে যাওয়া শহর ও বিপন্ন ঐতিহ্যবাহী প্রত্নতাত্বিক শহর হিসেবে বাগেরহাটকে তালিকাভুক্ত করে বিশ্বখ্যাত ফোর্বস সাময়িকী। ‘ওয়ার্ড মনুমেন্ট ওয়াচ’ এই তালিকা করে। জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে হুমকিতে থাকা সাংস্কৃতিকভাবে উল্লেখযোগ্য ইউনেস্কো ঘোষিত মসজিদের শহর বাগেরহাট বিশ্বের ২৫টি ঐতিহ্যবাহী স্থাপনার মধ্যে অন্যতম। বাংলাদেশের একমাত্র মসজিদের শহর বাগেরহাট এই তালিকায় স্থান পায়।

ষোড়শ শতাব্দীতে খানজাহান আমলে নির্মিত ইসলামী স্থাপত্য রীতির মসজিদ গুলোর ঐতিহাসিক গুরুত্ব বিবেচনা করে ১৯৮৫ সালে বাগেরহাটকে ঐতিহাসিক মসজিদের শহর হিসেবে ঘোষণা এবং ৩২১তম বিশ্ব ঐতিহ্যের তালিকাভুক্ত করে ইউনেস্কো।

ওয়ার্ল্ড মনুমেন্টস ফান্ড (ডাব্লিএমএফ) দ্বারা পরিচালিত প্রকল্প ওয়ার্ল্ড মনুমেন্টস ওয়াচ। বিশ্বে ঐতিহাসিক এবং সাংস্কৃতিকভাবে গুরুত্বপূর্ণ যেসব স্থান জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব, ভারসাম্যহীন পর্যটন ও কম প্রচারণার কারণে পিছিয়ে পড়ছে, যেগুলোর রক্ষণাবেক্ষন প্রয়োজন, এমন সাইটগুলির সংরক্ষণ-সুরক্ষার জন্য তহবিল সংগ্রহ করতে সহায়তা এবং সচেতনতা সৃষ্টিতে কাজ করে প্রকল্পটি।

অতিদ্রুত গলছে হিমবাহ : এভারেস্ট বেসক্যাম্প সরিয়ে নিচ্ছে নেপাল
মোটরসাইকেল নিয়ে নায়কের বিশ্ব ভ্রমণ, ছবি ভাইরাল

আপনার মতামত লিখুন